ঢাকা   ৩রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ । ১৯শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মানিকগঞ্জের কালিগঙ্গা নদী থেকে বালু হরণ করছে মিলন ও ফরহাদ

প্রতিবেদকের নাম
  • প্রকাশিত : শনিবার, জানুয়ারি ২০, ২০২৪
  • 41 শেয়ার

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি মোঃ মাহাবুব আলম তুষার

বাংলাদেশ একটি নদীমাতৃক দেশ ৷ (বঙ্গো + আল) থেকেই বাংলাদেশের নামের উৎপত্তি ৷ নদী ,নালা, খাল, বিল এটা বাংলাদেশের স্বনামধন্য ঐতিহ্য ৷ কালের বিবর্তনে এবং জলদস্যদের ও ভূমিদস্যদের কারণে এ ঐতিহ্য এখন হুমকির সম্মুখীন ৷ এ ঐতিহ্য কে টিকে রাখার জন্য বাংলাদেশ সরকার বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছেন ৷ তবুও কিছু লোক বাংলাদেশ সরকারের সকল নিয়মকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে নিয়মের তোয়াক্কা না করে অনিয়ম ভাবে ধ্বংস করে যাচ্ছে এ ঐতিহ্যকে ৷
মানিকগঞ্জে স্থানীয় জনতার সম্মুখে ,বিকট শব্দ দূষণের মাধ্যমে কালিগঙ্গা নদীর দু পাড় কে ধ্বংস করে এবং নদীর তলদেশ বিধির্ণ করে, গহীন থেকে বালু- মাটি দিবালোকে জনতার সম্মুখে ঘিওর থানার বানিয়াজুরি ইউনিয়নের কালিগংগা নদী থেকে বিক্রি করছে স্থানীয় ভূমিদস্যু মিলন ও ফরহাদ নামের দুই ভূমিদস্যু ৷ এমন অভিযোগের ভিত্তিতে সংবাদকর্মী বিষয়টি তদন্ত করতে গিয়ে দেখতে পান , মানিকগঞ্জ জেলার ঘিওর থানার বানিয়াজুরী ইউনিয়নের খানপাড়া ও তরা পুরাতন বাজার এলাকায় কালিগঙ্গা নদীর দুই পাড় ধ্বংস করার পর নদীর গহীন থেকে বালু অপসারণ করে নিয়ে যাচ্ছে বিভিন্ন স্থানে ৷
স্থানীয় লোকজন ( নাম প্রকাশে অনিচ্ছু ) বলেন, “ এ ড্রেজার দিয়ে তারা অবৈধভাবে বালু-মাটি বিভিন্ন জায়গায় বিক্রি করছে ৷ গত মাসে স্থানীয় প্রশাসন একবার ভেঙে রেখে যায় ৷ কিন্তু, মাস পূর্ণ না গড়াতেই তারা পুনরায় নতুন পাইপ সংযোজন করে এবং আগের ভাঙ্গা পাইপ মেরামত করে বহুদূর পর্যন্ত বালু- মাটি নিয়ে যাচ্ছে ৷ আমরা সাধারণ লোক ৷ অসহ্য বিকট শব্দ সহ্য করতে হচ্ছে আমাদের ৷ আমরা নিরীহ ৷ বলার কেউ নেই ৷
যেভাবে কালিগঙ্গা নদীকে ধ্বংস করা হচ্ছে , এর ক্ষতির সম্মুখীন আমরাই হবো ৷ এটা জেনেও কেউ বাধা দেওয়ার জন্য এগিয়ে আসছে না ৷ কেন আসছে না ,তাও জানিনা ৷ আমরা এমন শব্দ দূষণ থেকে মুক্তি চাই ৷ আমরা নদী ভাঙ্গন থেকে বাঁচতে চাই ৷ আমাদের ক্ষেত খামারিকে উদ্ধার করতে চাই ৷ আমাদের সকলের দাবি, অতিসত্বর যেন প্রশাসন এমন অবৈধ কাজের প্রতি দৃষ্টি আরোপ করেন ৷ ” স্থানীয় লোকজন থেকে জানা যায়, ড্রেজারের মালিক ফরহাদ ও মিলন ৷ অতঃপর ডেজারের মালিকদের সাথে যোগাযোগ করা হলে , তিনি ড্রেজারের বৈধ কোন কাগজপত্র দেখাতে পারেননি।
বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ভূমি অফিসাকে জানালে তিনি বলেন ,আমরা অতি দ্রুত ব্যবস্থা নিচ্ছি।

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ
© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০