ঢাকা   ২০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ । ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রথম ধাপে ওমরাহ পালনের অনুমতি পেলেন ১ লাখ ৮ হাজার জন

নির্মল বার্তা
  • প্রকাশিত : রবিবার, অক্টোবর ৪, ২০২০
  • 91 শেয়ার
পবিত্র নগরী মক্কায় ওমরাহ পালন

মহামারি করোনাভাইরাসের মধ্যে সীমিত পরিসরে ওমরাহ হজ পালনের জন্য সৌদি আরব সরকার যে অ্যাপ চালু করেছে, তাতে ৫ দিনে আবেদন করে ১ লাখ ৮ হাজার ৪১ জন চূড়ান্ত অনুমতি পেয়েছেন৷

শুক্রবার সৌদি আরবের হজ ও ওমরাহ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে আরব নিউজের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, অনুমতি পাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে ৪২ হাজার ৮৭৩ জন সৌদি আরবের এবং বাকি ৬৫ হাজার ১২৮ জন সৌদি আরবে অবস্থান করা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নাগরিক।

গত ২৭ সেপ্টেম্বর থেকে মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ‘আই-টামারনা’র মাধ্যমে ওমরাহ পালনের নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হয়। এর প্রথম কয়েক ঘণ্টার মধ্যে প্রথম ১০ দিনের ওমরাহ পালনের নির্ধারিত কোটা পূর্ণ হয়ে যায়।

প্রথম এক ঘণ্টায় ওমরাহ পালনের জন্য ১৬ হাজার আবেদন জমা পড়ে, সপ্তাহের শেষে যা ৩ লাখ ৯ হাজার ৬৮৬ জনে পৌঁছায়। এর মধ্যে অনুমতি দেওয়া হলো ১ লাখ ৮ হাজার ৪১ জনকে।

ওমরাহ হজ পালনের জন্য আবেদনকারীদের মধ্যে ৩৫ শতাংশেরই বয়স ৬০ বছরের বেশি। এছাড়া ৩১ থেকে ৪০ বছর বয়সী রয়েছেন ২৬ শতাংশ, ২০ থেকে ৩০ বছর বয়সী ১৭ শতাংশ এবং ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সী ১৪ শতাংশ। সব চেয়ে কম আবেদন করেছেন ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে, ৮ শতাংশ।

পূর্ব ঘোষিত সিদ্ধান্ত ও নিয়ম অনুযায়ী আগামী রোববার (৪ অক্টোবর) থেকে ওমরাহ শুরু হবে। এতে অংশগ্রহণ করতে হলে মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ‘আই-টামরনা’-এর মাধ্যমে আবেদন করতে হয়।

প্রথম ধাপে সৌদি অবস্থানকারী স্থানীয় ও প্রবাসীরা নির্ধারিত নিয়ম ও শর্ত পালন সাপেক্ষে ওমরাহ পালনের সুযোগ পাবেন।

মুসলমানদের অন্যতম দুই পবিত্র মসজিদের জেয়ারত ও ওমরাহ পালনের জন্য প্রথম ধাপে প্রতিদিন ৬ হাজার ব্যক্তি সুযোগ পাবেন। ২৪ ঘণ্টায় ১২টি গ্রুপে বিভক্ত হয়ে ওমরাহ ও জেয়ারত সম্পন্ন করতে হবে। প্রতি গ্রুপে ৫০০ ব্যক্তি অংশগ্রহণ করতে পারবেন বলে সিদ্ধান্ত জানায় কর্তৃপক্ষ।

ওমরাহ চলাকালে পবিত্র নগরী মক্কার মসজিদে হারাম তথা কাবা শরিফের পুরো আঙ্গিনা প্রতিদিন ১০ বার জীবাণুমুক্তকরণ কার্যক্রম চালাবে দায়িত্বশীল কর্তৃপক্ষ।

ওমরাহ পালনে মসজিদে হারাম তথা কাবা চত্বরে যাওয়ার আগে প্রত্যেক ওমরাহ পালনকারীকে জীবাণুমুক্ত করা হবে। প্রত্যেককে বোতলজাত জমজমের পানিও সরবরাহ করা হবে।

তবে ওমরাহ পালনকারীরা কাবা চত্বরে তাওয়াফ সম্পন্ন করলেও হাজারে আসওয়াদ স্পর্শ বা চুম্বনে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। কাবা শরিফের বাইরে অস্থায়ী প্রাচীরের বাইরে থেকে তাওয়াফ সম্পন্ন করতে হবে।

হজের পাঁচ দিন (৮ জিলহজ থেকে ১২ জিলহজ ) ছাড়া সারা বছর ৩৬০ দিন ওমরাহ করার নিয়ম রয়েছে। তবে করোনা মহামারির কারণে প্রায় সাত মাস বন্ধ ছিল কাবাঘর।

সৌদি আরবের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানায়, ‘এবার চার ধাপে হবে ওমরাহ। প্রথম ধাপে ৪ অক্টোবর থেকে প্রতিদিন সৌদির অভ্যন্তরের ৬ হাজার মানুষ ওমরাহ পালনের অনুমতি পাবেন। দ্বিতীয় ধাপে ১৮ অক্টোবর থেকে প্রতিদিন ওমরাহ পালন করতে পারবেন ১৫ হাজার। আর নামাজ আদায় করতে পারবেন ৪০ হাজার মুসল্লি। তৃতীয় ধাপে পহেলা নভেম্বর থেকে সৌদির বাইরের মুসল্লিসহ প্রতিদিন ২০ হাজার মানুষ ওমরাহ আর ৬০ হাজার মুসল্লি নামাজ আদা করতে পারবেন। চতুর্থ ধাপে করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হলে স্বাভাবিক সময়ের মতো মসজিদুল হারাম ও নববীতে নামাজ আদায় করতে পারবেন মুসল্লিরা।’

আরব নিউজ

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ
© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০