ঢাকা   ২১শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ । ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
লায়ন্স ক্লাব ডিস্ট্রিক ৩১৫বি-৩ এর ২৮তম বার্ষিক কনভেনশন অনুষ্ঠিত, সম্মাননা পেলেন খান আকতারুজ্জামান রাজউক চেয়ারম্যানকে লায়ন্স ক্লাবের ইন্টারন্যাশনাল পিন পরিয়ে দিচ্ছেন খান আকতারুজ্জামান ঢাকায় অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী পেনি ওং শান্তর অধিনায়কত্ব নিয়ে মুখ খুললেন লিটন দুই ঘণ্টায় ভোট পড়েছে ৭-৮ শতাংশ : ইসি অতিরিক্ত সচিব রাইসির মর্মান্তিক মৃত্যুতে মর্মাহত মোদি, শোক পালন করবে পাকিস্তান টানা দ্বিতীয়বার গোল্ডেন বুট পেলেন হালান্ড ডিপজলকে শিল্পী সমিতির পদে দায়িত্ব পালনে নিষেধাজ্ঞা ইব্রাহিম রাইসির মরদেহ উদ্ধার, নেওয়া হচ্ছে তাবরিজে গণপূর্তের ই/এম সার্কেল-২ “কার্যালয় চলে ২০% কমিশনে”

দুর্নীতির একটা সীমা থাকে, এটা সাগরচুরি : শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক

প্রতিবেদকের নাম
  • প্রকাশিত : বুধবার, এপ্রিল ২৪, ২০২৪
  • 29 শেয়ার

বিজনেস ফাইল প্রতিবেদক
বেনজীর আহমেদের দুর্নীতির বিষয়ে কালের কণ্ঠে প্রকাশিত প্রতিবেদন যদি সত্য হয়, তবে তা অবশ্যই উদাহরণ হবে। কারণ দুর্নীতির একটা সীমা থাকে, এখানে যা হয়েছে, তা সাগরচুরি। একজন সরকারি কর্মকর্তার এত সম্পদ কিভাবে হতে পারে, আমি এটা ভাবতেই পারছি না! এটা অবিশ্বাস্য! এ জন্য অন্যদের সাবধান করতে দ্রুত অনুসন্ধান করে দুর্নীতি প্রমাণিত হলে উপযুক্ত বিচারের ব্যবস্থা করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি এ এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক।

সোমবার গণমাধ্যমের কাছে এ মন্তব্য করেন তিনি।

অভিযোগ যথাযথভাবে অনুসন্ধান করা না হলে সৎ কর্মকর্তারা সৎ থাকার বিষয়ে নিরুৎসাহ হবেন বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘প্রতিবেদনে বিস্তারিত বর্ণনা দিয়ে সাবেক আইজিপি বেনজীর আহমেদের অনিয়ম-দুর্নীতির ঘটনাগুলো উল্লেখ করা হয়েছে। কোথায়, কবে, কত টাকা বিনিয়োগ করা হয়েছে, বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরার পর দুদককে অবশ্যই এটা তদন্ত করতে হবে। আর দুদক যদি তদন্ত না করত তবে হাইকোর্টের ক্ষমতা আছে। হাইকোর্ট দুদককে অনুসন্ধানে আনতে বাধ্য করতে পারেন।
তবে দুদক নিজেই তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। বেনজীর আহমেদ যদি দুর্নীতি করে থাকেন তাহলে দুদকের অনুসন্ধানে তা অবশ্যই বেরিয়ে আসবে।’
অবসরপ্রাপ্ত এই বিচারপতি বলেন, ‘দুদক যদি বেনজীর বা তাঁর আত্মীয়-স্বজনের দুর্নীতির খোঁজ পায় তাহলে অবশ্যই তাঁর বিরুদ্ধে মামলা করতে হবে। সবার স্বার্থেই করতে হবে।

এমনকি পুলিশের স্বার্থেও এই তদন্ত হওয়া উচিত। কারণ এই প্রতিবেদন প্রকাশের পর মানুষের মধ্যে একটি ধারণা তৈরি হয়েছে, বুঝি পুলিশের সব সদস্য অনিয়মের সঙ্গে সম্পৃক্ত। কিন্তু পুলিশের অনেক সৎ ও মেধাবী কর্মকর্তা আছেন। তাঁরা নিয়মিত দেশ ও জনগণের সেবা করে যাচ্ছেন।’
বর্তমান পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুনের উদাহরণ টেনে বিচারপতি মানিক বলেন, ‘বর্তমান আইজিপির আপন ছোট ভাই চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মাহমুদ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়ার পরও সংসদ সদস্য নির্বাচনে হেরেছেন। এখান থেকে প্রমাণিত হয়েছে যে বর্তমানে পুলিশের সর্বোচ্চ কর্মকর্তা হয়েও তিনি তাঁর ভাইয়ের নির্বাচনকে প্রভাবিত করেননি।’

বেনজীর আহমেদ অপরাধ করে থাকলে সেটি তাঁর বিষয় মন্তব্য করে অবসরপ্রাপ্ত এই বিচারপতি বলেন, ‘অন্য পুলিশ কর্মকর্তারা এর দায় নেবেন না। সরকারের স্বার্থেও অনুসন্ধানটা হওয়া উচিত। কারণ এখানে সরকারের ভাবমূর্তির প্রশ্ন রয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘দুদকের কর্মকর্তারা প্রভাবশালীদের কোনো চাপ অনুভব করলেও হাইকোর্ট কিন্তু পেছনে থেকে সেটি দেখবেন। ফলে এখানে লুকানোর কোনো উপায় নেই। কারণ হাইকোর্টে রিট ফাইল করা হয়েছে। সেহেতু হাইকোর্ট অবশ্যই এটা দেখবেন।’

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ
© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০