ঢাকা   ২১শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ । ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
লায়ন্স ক্লাব ডিস্ট্রিক ৩১৫বি-৩ এর ২৮তম বার্ষিক কনভেনশন অনুষ্ঠিত, সম্মাননা পেলেন খান আকতারুজ্জামান রাজউক চেয়ারম্যানকে লায়ন্স ক্লাবের ইন্টারন্যাশনাল পিন পরিয়ে দিচ্ছেন খান আকতারুজ্জামান ঢাকায় অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী পেনি ওং শান্তর অধিনায়কত্ব নিয়ে মুখ খুললেন লিটন দুই ঘণ্টায় ভোট পড়েছে ৭-৮ শতাংশ : ইসি অতিরিক্ত সচিব রাইসির মর্মান্তিক মৃত্যুতে মর্মাহত মোদি, শোক পালন করবে পাকিস্তান টানা দ্বিতীয়বার গোল্ডেন বুট পেলেন হালান্ড ডিপজলকে শিল্পী সমিতির পদে দায়িত্ব পালনে নিষেধাজ্ঞা ইব্রাহিম রাইসির মরদেহ উদ্ধার, নেওয়া হচ্ছে তাবরিজে গণপূর্তের ই/এম সার্কেল-২ “কার্যালয় চলে ২০% কমিশনে”

গাজায় মৃত্যের সংখ্যা ছাড়িয়েছে পৌনে ৩৪ হাজার

প্রতিবেদকের নাম
  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, এপ্রিল ১৬, ২০২৪
  • 43 শেয়ার

বিজনেস ফাইল প্রতিবেদক

গাজায় ছয় মাসের বেশি সময় ধরে চলা ইসরায়েলের নির্বিচার হামলায় নিহত ফিলিস্তিনের সংখ্যা পৌনে ৩৪ হাজার ছাড়িয়েছে। আহত হয়েছেন প্রায় সাড়ে ৭৬ হাজার ফিলিস্তিনি। ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে এমনটাই জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থাগুলো।

দেশটির কর্তৃপক্ষ জানায়, স্থানীয় সময় গতকাল সোমবার (১৫ এপ্রিল) পর্যন্ত গাজায় ইসরায়েলি হামলায় নিহতের সংখ্যা ৩৩ হাজার ৭৯৭ জন। আহত হয়েছেন ৭৬ হাজার ৪৬৫ জন।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ৭ অক্টোবর ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী গোষ্ঠী হামাস ইসরায়েলের নজিরবিহীন হামলা চালায়। হামাসের যোদ্ধাদের আক্রমণে ১২০০ জন নিহত হয় ও তারা ২৫৩ জনকে ধরে গাজায় নিয়ে জিম্মি করে বলে ভাষ্য ইসরায়েলের।

অক্টোবরের ওইদিন থেকেই গাজায় ব্যাপক হামলা শুরু করে ইসরায়েলি বাহিনী। তারা হামাসের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক যুদ্ধ ঘোষণা করে ফিলিস্তিনি গোষ্ঠীটিকে নির্মূল করার প্রত্যয় জানায়। সবদিক থেকে গাজা অবরোধ করে ভূখণ্ডটির বিদ্যুৎ ও পানি সরবরাহ বন্ধ করে দেয়।

তারপর থেকে গত ছয় মাসেরও বেশি সময় ধরে ইসরায়েলির বাহিনীর স্থল, আকাশ ও নৌ হামলায় ফিলিস্তিনি ছিটমহল গাজা ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। ঘরবাড়ি হারিয়ে গাজার ২৩ লাখ বাসিন্দার প্রায় সবাই উদ্বাস্তু হয়ে গেছে।

ইসরায়েলের টানা ৪৭ দিনের হামলার পর গত বছরের ২৪ নভেম্বর প্রথম দফায় চার দিনের যুদ্ধবিরতি কার্যকর হয়। এ যুদ্ধবিরতিতে মধ্যস্থতা করে কাতার, মিসর ও যুক্তরাষ্ট্র।

এরপর দুই দফায় মোট তিন দিন বাড়ানো হয় যুদ্ধবিরতির মেয়াদ। সাত দিনের যুদ্ধবিরতি শেষ হতে না হতেই আবারও গাজায় আবার হামলা শুরু করে ইসরায়েল। এর পাশাপাশি স্থল অভিযানও চালানো হচ্ছে।

ইসরায়েলি হামলায় গাজায় নিহত ফিলিস্তিনিদের মধ্যে নারী ও শিশুর সংখ্যাই ২৪ হাজারের বেশি। গাজায় ইসরায়েলি হামলার মুখোমুখি হওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে ৭৩ শতাংশই নারী ও শিশু। এছাড়া গাজায় ১৭ হাজার শিশু তাদের পিতামাতা বা উভয়ের যেকোনও একজন ছাড়াই বসবাস করছে।

কঠোর অবরোধ ও অবিরাম হামলার মধ্যে থাকা গাজাবাসীরা অনাহারে ভুগতে ভুগতে দুর্ভিক্ষের প্রান্তে চলে গেছে।

ইতোমধ্যেই অপুষ্টি ও পানিশূন্যতায় শিশুসহ অনেকের মৃত্যু হয়েছে। ক্ষুধায় বেপরোয়া হয়ে ওঠা লোকজন ত্রাণের জন্য হাহাকার করছে।

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ
© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০