ঢাকা   ১৯শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ । ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এইচএসসি পরীক্ষার্থী-অভিভাবকদের ভরসার প্রতীক ‘কুইক রেসপন্স টিম’: প্রশংসায় মতিঝিল ট্রাফিক বিভাগের কার্যক্রম

প্রতিবেদকের নাম
  • প্রকাশিত : রবিবার, জুন ৩০, ২০২৪
  • 36 শেয়ার

বিজনেস ফাইল প্রতিবেদক
আজ রোববার শুরু হয়েছে এইচএসসি পরীক্ষা। পরীক্ষা শুরুর দিনে অর্থাৎ আজ হঠাৎ বিপদে পড়ে উদ্বিগ্ন পরীক্ষার্থী এবং অভিভাবকদের মনে স্বস্তি এনে দিয়েছে ডিএমপির ট্রাফিক বিভাগের কুইক রেসপন্স টিম। বিশেষ করে সকালে পরীক্ষা শুরুর আগে মুষলধারে বৃষ্টি হয়েছে রাজধানীতে। প্রবল বৃষ্টিপাতের ফলে অনেক পরীক্ষার্থীর ছাতা না থাকায় বৃষ্টিতে ভিজে কেন্দ্রে ঢুকেছেন। এমন বেশ কয়েকজন পরীক্ষার্থীকে বৃষ্টিতে ভেজার হাত থেকে বাঁচাতে ছাতা দিয়ে কেন্দ্রে পৌঁছে দেন কুইক রেসপন্স টিমের সদস্যরা।
এইচএসসি পরীক্ষা উপলক্ষে মতিঝিল ট্রাফিক বিভাগ যান ও যানজট নিরসনের লক্ষ্যে আগে থেকেই ভেন্যু কেন্দ্রিক, রুট কেন্দ্রিক ও দ্রুত সাড়া প্রদানকারী দল তিনস্তর বিশিষ্ট পরিকল্পনা করেন। ব্রিফিংসহ প্রতিটি পরীক্ষা কেন্দ্রে সংশ্লিষ্ট ট্রাফিক ইন্সপেক্টর, সহকারী পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) এবং এ বিভাগের উপপুলিশ কমিশনার (অতিরিক্ত ডিআিইজি) মোহাম্মদ মইনুল হাসান পিপিএম শনিবার ঘুরে ঘুরে প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা দিয়েছিলেন।
জানা যায়, রাজধানীর মোট ৪৬টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৯ হাজার ৯৪৮ জন (বাংলা ও ইংরেজী ভার্সনসহ) পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দিয়েছেন আজ। এর মধ্যে মতিঝিল ট্রাফিক বিভাগের ৬টি কেন্দ্র ছিল-মালিবাগের আবুজর গিফারী কলেজ, খিলগাঁওয়ের খিলগাঁও মডেল কলেজ, রাজারবাগের রাজারবাগ পুলিশ লাইন স্কুল এন্ড কলেজ, মতিঝিলের পোস্ট অফিস হাই স্কুল, বাসাবোর কদমতলা পূর্ব বাসাবো স্কুল এন্ড কলেজ এবং সবুজবাগের সবুজবাগ সরকারি কলেজ।
মতিঝিল ট্রাফিক বিভাগ জানায়, রোববার সকাল থেকেই মতিঝিল ট্রাফিক বিভাগের সদস্যবৃন্দ পরীক্ষার্থীদের স্ব স্ব কেন্দ্রে পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে সর্বোচ্চ পেশাদারিত্ব নিয়ে অর্পিত দায়িত্ব পালন করেন। মুষলধারে বৃষ্টির মধ্যে রেইন কোট-গামবুট পরিধান করে, ছাতা মাথায় ট্রাফিক সদস্যগণ পরীক্ষার্থীদের কেন্দ্রে যথাসময়ে পৌঁছানোর লক্ষ্যে সাধ্যমত সবটুকু উজাড় করে দেন। শুধু তাই নয়, বৃষ্টিতে ভিজে পরীক্ষার্থীদের বাসের জন্য অপেক্ষমান দৃশ্য চোখে পড়লে মতিঝিল ট্রাফিক বিভাগের অন্তর্গত ট্রাফিক সদস্যগণ ছাতা এগিয়ে বৃষ্টি হাত থেকে রক্ষা পূর্বক পরীক্ষার্থীকে বাসে উঠিয়ে দেওয়ারও সুব্যবস্থা করেন। ট্রাফিক পুলিশের দায়িত্বশীল এ কর্মকান্ডের প্রশংসা করেন পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকগণ।


মতিঝিল ট্রাফিক বিভাগের কমিশনার (অতিরিক্ত ডিআিইজি) মোহাম্মদ মইনুল হাসান জানান, এইচএসসি পরীক্ষা উপলক্ষে পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকগণের চলাচল নিবিঘ্ন করতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়া হয়। এর মধ্যে প্রবল বর্ষণের আগে ও পরে কেউ যাতে যত্রতত্র রাস্তায় ব্যক্তিগত গাড়ী পার্কিং করে অনাকাঙ্খিত যানজট তৈরী করতে না পারে সেজন্য পরীক্ষা কেন্দ্রের সম্মূক্ষে ও বিভিন্ন স্থানে হেলার দিয়ে সচেতনতামূলক মাইকিং করা হয়। পরীক্ষার্থীদের সাথে অভিভাবক যারা এসেছেন তারা দ্রুত সময়ের মধ্যে কেন্দ্র এলাকা/রাস্তা ত্যাগ করে সুশৃঙ্খলভাবে অন্য পরীক্ষার্থীদের প্রবেশের সুযোগ করে দেন সেজন্য ও মাইকিং কার্যক্রম অব্যাহত থাকে। পরীক্ষার্থীদের ভুল করে অন্য কেন্দ্রে চলে আসা, সময় মতো পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছাতে না পারা কিংবা কেন্দ্রে যেতে যে কোন অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে কুইক রেসপন্স টিম ত্বরিত গতিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।
তিনি জানান, চলমান পাবলিক পরীক্ষা শেষ না হওয়া পর্যন্ত পরীক্ষার্থীদের নির্বিঘ্নে কেন্দ্রে পৌঁছানোর লক্ষ্যে মতিঝিল ট্রাফিক বিভাগের বহুমুখী কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।


উল্লেখ্য, মতিঝিল ট্রাফিক বিভাগ সড়কে বিদ্যমান বাস্তবতা উল্লেখ করে পরীক্ষার্থীদের ও অভিভাবকবৃন্দের যথাসময়ে পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছানোর লক্ষ্যে করণীয় সম্পর্কে গত ২৮ জুন ট্রাফিক মতিঝিল বিভাগের ফেইসবুক পেইজে একটি পোস্টও দিয়েছিল, যা ব্যাপক সাড়া পেয়েছে। সেই পোস্টটি মতিঝিল ট্রাফিক বিভাগের ৬টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাথে ফরোয়ার্ডও করা হয়েছিল যাতে তারা নিজস্ব/গার্ডিয়ান গ্রুপে প্রচারের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট সকলে প্রয়োজনীয় ট্রাফিক গাইড লাইন পেতে পারে।

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ
© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০