ঢাকা   ২৩শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ । ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
এবার সোনালী ব্যাংকের পদও হারাচ্ছেন ছাগলকাণ্ডের মতিউর এনবিআরের পদ থেকে সরানো হলো মতিউরকে আওয়ামী লীগের গৌরবের ৭৫ বছর: বঙ্গবন্ধু থেকে শেখ হাসিনা সিঙ্গেল লাইফে চিন্তা নেই, ঝামেলা নেই : মোনালিসা স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার অঙ্গীকার-শপথ নিয়ে আ.লীগের সৃষ্টি ঈদের ১৩ দিনে পদ্মা সেতুতে টোল আদায় ৪২ কোটি টাকা আওয়ামী লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তীতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক পরিষদ সিলেট মহানগর শাখার আংশিক কমিটি ঘোষণা, অরবিন্দু সভাপতি ও নন্দলাল সম্পাদক নয়াদিল্লি পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী, আজ শনিবার মোদির সঙ্গে একান্ত বৈঠক কুষ্টিয়ায় সাংবাদিকের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে ছত্রিশ ঘন্টার আল্টিমেটাম

এফবিসিসিআই এজিএমে জিবি সদস্যরা বিচার চাই শ্লোগানে মুখরিত

প্রতিবেদকের নাম
  • প্রকাশিত : রবিবার, ডিসেম্বর ১০, ২০২৩
  • 104 শেয়ার

বিজনেস ফাইল প্রতিবেদক

‘রাজনীতি যার যার, অর্থনীতি সবার’ এই মূলমন্ত্র স্মরণে রেখে দেশের অর্থনীতিকে সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিতে ব্যবসায়ী সম্প্রদায়কে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানিয়েছেন শীর্ষ বাণিজ্য সংগঠন দি ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার্স অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এফবিসিসিআই) সভাপতি মাহবুবুল আলম।

শনিবার দুপুরে রাজধানীর বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব কনভেনশন হলে অনুষ্ঠিত এফবিসিসিআইয়ের বার্ষিক সাধারণ সভা (২০২২-২০২৩) এ বক্তৃতা প্রদানকালে ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে এসব কথা বলেন এফবিসিসিআই সভাপতি।

মাহবুবুল আলম বলেন, ব্যবসায়ীরা দেশের অর্থনীতির প্রাণ। বাংলাদেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিতে ব্যবসায়ীরা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন। দেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিতে, দেশকে সমৃদ্ধ করতে সকল ভেদাভেদ ভুলে ব্যবসায়ীদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। ক্ষুদ্র, মাঝারি, বৃহৎ শিল্পোদ্যোক্তা থেকে শুরু করে দেশের সকল পর্যায়ের ব্যবসায়ীকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

বর্তমান বিশ্ব ভূ-রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে সৃষ্ট অর্থনৈতিক সংকটের ফলে বাংলাদেশের সার্বিক অর্থনৈতিক কার্যক্রমে নেতিবাচক প্রভাব ইতোমধ্যে পড়তে শুরু করেছে মন্তব্য করে মাহবুবুল আলম বলেন, এতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে আমাদের ব্যবসায়ীরা। এছাড়া ২০২৬ সালে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ পরবর্তী চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বাণিজ্য সংক্রান্ত পরিস্থিতি ও নীতিমালা ক্রমশ আধুনিকায়ন করতে হচ্ছে।

গত বার্ষিক সাধারণ সভার কার্য বিবরণী, এফবিসিসিআই’র বার্ষিক প্রতিবেদন ২০২২-২৩, এফবিসিসিআইয়ের আয়-ব্যয়ের নিরীক্ষা প্রতিবেদন এবং নতুন একটি প্রতিষ্ঠানকে নিরীক্ষক দেয়ার বিষয়ে সর্বসম্মতিক্রমে অনুমোদন দেয়া হয়।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে এফবিসিসিআই এর সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. আমিন হেলালী, সহ-সভাপতি খায়রুল হুদা চপল, মোহাম্মদ আনোয়ার সাদাত সরকার, ড. যশোদা জীবন দেবনাথ, শমী কায়সার, রাশেদুল হোসেন চৌধুরী (রনি), মো. মুনির হোসেন, পরিচালক বৃন্দ এবং এফবিসিসিআই এর সাধারণ পরিষদের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

বার্ষিক সাধারণ সভায় এফবিসিসিআইয়ের একজন সাবেক সাবেক ফাস্ট ভাইস বলেন, শুনেছি গুলশানে এফবিসিসিআইয়ের একটি অফিস উদ্বোধন করা হয়েছে। প্রশ্ন হচ্ছে এফবিসিসিআই দেশের দ্বিতীয় পার্লামেন্ট হিসেবে সরকারের সাথে সমন্বয় করে কাজ করে যাচ্ছে। এখানে জিবি নামে সাধারণ সদস্যদের একটি বিশাল পর্ষদ রয়েছে। আমার প্রশ্ন হচ্ছে কোন আইনের ধারাবাহিকতায় কিংবা কোন ম্যান্ডেট নিয়ে এ কাজটি করা হয়েছে, যারা করলেন তাদের কি একবারও মনে হলো না আমাদের সাধারণ সদস্যদের একটি মতামত দরকার?
আবার শুনেছি রাজধানীর হাটখোলার এফবিসিসিআই ভবনের সাথে একটা অবৈধ চুক্তি করা হয়েছে, তাও আবার আমাদের জানানো হয়নি। অন্যদিকে এফবিসিসিআই ফান্ড থেকে গবেষণার নামে ৭ কোটি টাকা দেয়া হয়েছে, সেটার বিষয়টা কি? আবার এটাও শোনা যাচ্ছে এফবিসিসিআই বিজনেস সামিট ২০২৩ এর কিছু বিল বোর্ড মিটিং ও ফিন্যান্স কমিটিতে অনুমোদন হয়নি। এটা কিসের আলামত? এসব কথা বললে, উপস্থিত জিবি সদস্যরা তার কথার সপক্ষে জোরালো সমর্থন দেন এবং মিলনায়তন থেকে জসীম উদ্দিনের বিচার চাই, বিচার চাই বলে শ্লোগান উঠে।

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ
© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০